মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১২:৩৩ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশকে ১ লাখ হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ট্যাবলেট ও ৫০ হাজার গ্লাভস দিল ভারত করোনায় দেশে আরও ৫ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৪১৮ করোনায় আরও ৯ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৩০৯ করোনায় একদিনে নতুন আক্রান্তের সংখ্যা ৫০০ ছাড়ালো কোভিড-১৯: নতুন শনাক্ত ৪১৪ জন, মৃত্যু হয়েছে ৭ জনের কোভিড-১৯: আক্রান্তদের মধ্যে ৭৩ শতাংশই ঢাকা বিভাগের বেতন পেল সাকিবের কাকড়া ফার্মের শ্রমিকরা চাঁদ দেখা যায়নি, সৌদিতে রোজা শুরু শুক্রবার সাধারণ ছুটির মেয়াদ ৫ মে পর্যন্ত বাড়ানোর সিদ্ধান্ত মাগুরায় প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় আরও ১০ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৩৯০ করোনা: চকবাজারে এক পরিবারে ১৭ জন আক্রান্ত মালয়েশিয়ায় হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন রফতানিতে বাংলাদেশের সম্মতি ধান কাটতে শ্রমিক পাঠানো শুরু করল পুলিশ দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ৯ ও নতুন আক্রান্ত ৪৩৪
২০১৮-১৯ অর্থবছরের জন্য এক নজরে বাজেট

২০১৮-১৯ অর্থবছরের জন্য এক নজরে বাজেট

২০১৮-১৯ অর্থবছরের জন্য ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৫৭৩ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব পেশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। যা আগের চেয়ে ৬৪ হাজার ৩০৭ কোটি টাকা বেশি। শতাংশের হিসাবে ২৪ শতাংশ বেশি। নতুন অর্থবছরে প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৭ দশমিক ৮ শতাংশ। আর রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা ৩ লাখ ৩৯ হাজার ২৮০ কোটি টাকা। এরপরও বাজেটে ঘাটতি থাকবে ১ লাখ ২৫ হাজার ২৯৩ কোটি টাকা। যা অভ্যন্তরীণ ঋণ, বিদেশি সহায়তা থেকে মেটানো হবে।

দেশের ৪৭ তম আর নিজের ১২তম বাজেট পেশ করতে কালো ব্রিফকেস নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দুপুর ১২টা ৫০ মিনিটে সংসদে প্রবেশ করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। এর পরপরই স্পিকারের অনুমতি পেয়ে বর্তমান সরকারের টানা দ্বিতীয় মেয়াদের শেষ বাজেট বক্তৃতা শুরু করেন। ‘সমৃদ্ধ আগামীর পথ যাত্রায় বাংলাদেশ’ এই স্লোগান নিয়ে এবারের বক্তব্যে অর্থনীতিকে শক্তিশালী করতে নানা কর্মকৌশলের বর্ণনা তুলে ধরেন অর্থমন্ত্রী।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেন, ‘মূল লক্ষ্য হলো দারিদ্র্য দূরীকরণ ও অসমতা হ্রাস। কারণ এই পথে গেলেই দেশের সার্বিক উন্নয়ন হয়।’

এরপর আগামী অর্থবছরের জন্য ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৫৭৩ কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব করেন অর্থমন্ত্রী। নতুন অর্থবছরের এই বাজেট বাস্তবায়নে রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয় ৩ লাখ ৩৯ হাজার ২৮০ কোটি টাকা। এনবিআর ২ লাখ ৯৬ হাজার ২০১ কোটি টাকা। এনবিআর বহির্ভূত রাজস্ব ৯৭২৭ কোটি । কর ব্যতীত আয় ৩৩ হাজার ৩৫২ কোটি টাকা।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবসম্মত। কারণ ইতিমধ্যেই জাতীয় রাজস্ব খাতে জনবল ও কর্মপদ্ধতিতে ব্যাপক সংস্কার আনা হয়েছে। কর পরিপালনের প্রবণতা দেশে অত্যন্ত উচ্চমানের।’

বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে বরাদ্দ ১ লাখ ৭৩ হাজার কোটি টাকা। মূল্যস্ফীতি ধরা হয় ৫ দশমিক ৬ শতাংশ। আর মোট দেশজ উৎপাদন বা জিডিপির আকার ২৫ লাখ ৩৭ হাজার ৮৪৯ কোটি টাকা। বাজেট ঘাটতি মেটাতে বৈদেশিক উৎস থেকে ৫৪ হাজার ৬৭ কোটি এবং অভ্যন্তরীণ উৎস থেকে যোগান ধরা হয় ৭১ হাজার ২২৬ কোটি টাকা।
আসছে অর্থবছরের সবচেয়ে বেশি বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে শিক্ষা ও প্রযুক্তি খাতে ৬৭ হাজার ৯৩৫ কোটি টাকা। এরপরই পরিবহন ও যোগাযোগ খাতে ৫৬ হাজার ৪৪৬ কোটি টাকা। শতাংশের হিসাবে শিক্ষা প্রযুক্তিতে ১৬.৩ আর পরিবহন যোগাযোগে ২৬.৬ শতাংশ।

প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর আলোচনা শেষে ৩০ জুন ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট পাস হওয়ার কথা রয়েছে।

 

আপডেট২৪নিউজ/পিকে

দয়া করে আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Update24newsbd.Com
Desing & Developed BY Update24newsbd.Com